default-image

এদিকে সকাল থেকে উৎসব জুড়ে রয়েছে বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের স্টল প্রদর্শনী, বিজ্ঞান ক্লাব সম্মেলন, বাংলাদেশে গবেষণা বিষয়ক আলোচনা সভা, বিজ্ঞান বিষয়ক প্রদর্শনী। বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে রাতে থাকছে আকাশ পর্যবেক্ষণ। স্টল প্রদর্শনী ও আকাশ পর্যবেক্ষণ সকল অতিথি ও দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

গবেষণা উৎসব প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন, বাংলাদেশ পানি সম্পদ উন্নয়ন বোর্ড, বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ, বাংলাদেশ ওশানোগ্রাফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউটসহ মোট ১৬টি স্টল ছিল। সেখানে গবেষকেরা তাঁদের গবেষণা উপস্থাপন করেন। একই সাথে টিএসসির গেমস রুমে ঢাকা ইউনিভার্সিটি সায়েন্স সোসাইটির ডেমন্ট্রেশন দল আয়োজন করে মজার বৈজ্ঞানিক খেলা ও প্রদর্শনী। তাঁদের সঙ্গে আরও ছিল রোবাস্ট রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের পক্ষ থেকে ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি শো।

দর্শকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল এই ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি শো। এই শো-এর মাধ্যমে তাঁরা মোট ৬টি ঐতিহাসিক স্থানকে ভার্চ্যুয়ালি দেখানোর চেষ্টা করেছে। ঐতিহাসিক স্থানের মধ্যে ছিল সোনারগাঁয়ের পানাম সিটি, বাগেরহাটের ষাট গম্বুজ মসজিদ, যশোরের ১১ শিব মন্দির, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ছোট সোনা মসজিদ, সোনারগাঁয়ের বড় সর্দার বাড়ি এবং দিনাজপুরের কান্তজীর মন্দির। ৬টি ঐতিহাসিক স্থাপনার ম্যাপ তৈরি করতে তাঁদের প্রায় ৫ বছর সময় লেগেছে। ভবিষ্যতে তাঁরা দেশের আরও প্রায় ২০০টি ঐতিহাসিক নিদের্শন নিয়ে কাজ করতে চায়। যে কেউ চাইলে https://www.virtualmuseumbd.com লিংকে গিয়ে মোবাইল বা কম্পিউটারের সাহায্যে দেখতে পারবেন এই ছয়টি স্থাপনা। বাস্তবে এখন স্থাপনাগুলো ভেঙ্গে নষ্ট হয়ে গেছে। কিন্তু এখানে আপনি স্থাপনাগুলোকে অতীতে যেরকম ছিল অনেকটা সেরকমই দেখতে পারবেন।

default-image

বিকেল ৫.৩০ টায় শুরু হয়েছে সমাপনী অনুষ্ঠান। এখানে উপস্থিত ছিলেন আয়োজনে প্রধান অতিথি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, বিশেষ অতিথি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের পরিচালক এ. কে. এম. লুৎফুর রহমান সিদ্দীক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সায়েন্স সোসাইটির মডারেটর ড. লাফিফা জামাল।

রাত ৮ টায় আকাশ পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে শেষ হবে এ আয়োজন। স্কিথ ক্যাসেগ্রেইন নামের আধুনিক টেলিস্কোপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে আকাশ পর্যবেক্ষনের সুযোগ পাবে।

এ আয়োজনে ম্যাগাজিন পার্টনার হিসেবে আছে বিজ্ঞান বিষয়ক দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাগাজিন মাসিক বিজ্ঞানচিন্তা

এর আগে, ২০১৯ সালে প্রথম আয়োজন করা হয়েছিল দেশীয় গবেষণা ও ক্যারিয়ার উৎসব। ভবিষ্যতেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সায়েন্স সোসাইটি এই আয়োজন চালিয়ে যেতে চায়। সেই সঙ্গে আয়োজনে আরও যুক্ত করতে চায় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ও রোবোটিকসের মতো বিষয়গুলো।

ইভেন্ট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন