গত ৭ জুন, আরও একটি গ্রহাণু অতিক্রম করেছিলো পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল। ২০২২ এনএফ নামের ওই গ্রহাণুটি পৃথিবীর মাত্র ৯০ হাজার কিলোমিটার দূর দিয়ে চলে গিয়ছিলো। আকারে অনেক ছোট হওয়ায় সেটা নিয়েও দুশ্চিন্তা কিছু ছিলো না।

নাসা পৃথিবীর নিকটস্থ এরকম হাজার হাজার মহাজাগতিক বস্তু পর্যবেক্ষণ করছে। বের করছে আগামী একশো বছরে এদের গতিপথ কেমন হবে। তাতে দেখা যাচ্ছে, এই শতাব্দীর মাঝে পৃথিবীতে কোন প্রলয়ংকারী গ্রহানু আছড়ে পড়ার আশঙ্কা নেই।

তবে, এরপরও পুরোপুরি নিশ্চিন্ত হবার কোন উপায় নেই এখন। মহাকাশে সামান্য সংঘর্ষই বস্তুর গতিপথ পরিবর্তন করে দেয়। তাই, কোন কারণে দুইটি গ্রহাণু ধাক্কা খেলে সেটা পৃথিবীর জন্য বিপর্যয়ের কারণ হতে পারে।

মহাকাশ সংস্থাগুলো গ্রহাণুর আঘাত প্রতিরোধের জন্য গুরুত্বের সাথে কাজ করছে। রকেট পাঠিয়ে গ্রহাণুর গতিপথ পরিবর্তন করা কতোখানি সম্ভব তা নিয়ে কাজ করছে নাসা। পরীক্ষার ফলাফল আশানুরূপ হলে গ্রহাণু আছড়ে পড়ার দুশ্চিন্তাকে বিদায় জানাতে পারবে পৃথিবীবাসী।

লেখক : শিক্ষার্থী, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ, তেজগাঁও কলেজ, ঢাকা।

সূত্র : লাইভ সায়েন্স, নাসা

মহাকাশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন