শব্দকাহন বিজ্ঞানচিন্তা

শব্দকাহন বিজ্ঞানচিন্তা 

শব্দকাহন

পরমাণু শব্দটি কিভাবে এলো

খ্রিষ্টপূর্ব প্রায় ৬০০ বছর আগে ভারতীয় দার্শনিক কণাদ বলেছিলেন, সব পদার্থই অতি ক্ষুদ্র আর অবিভাজ্য কণা দিয়ে তৈরি। এদিকে খ্রিষ্টপূর্ব ৪৫০ সালে গ্রিসের এক দার্শনিক লিউসিপ্পাসও একই কথা বলেছিলেন।

পরমাণু শব্দটি কিভাবে এলো

'ফসফরাস' শব্দটি কীভাবে পেলাম?

ফসফরাসকে একসময় বলা হতো শয়তানের মৌল। অনেকের ধারণা, মৌলগুলোর মধ্যে ফসফরাস ১৩তম আবিষ্কার বলেই এমন নাম পেয়েছিল। কারণ, ইউরোপিয়ানদের কাছে ১৩ অশুভ সংখ্যা। এই নামের পেছনে আরেকটি করুণ ইতিহাসও জড়িত।

'ফসফরাস' শব্দটি কীভাবে পেলাম?

শব্দকাহন

বোরনের কথা

মধ্যযুগে তিব্বতে একধরনের সাদা চূর্ণ পাওয়া যেত। এটি আসলে আমাদের দেশে সোহাগা নামে পরিচিত। গ্লাস বা চীনামাটির থালাবাসন তৈরিতে সোহাগা ব্যবহূত হয়।

বোরনের কথা

শব্দকাহন

নিকোটিনিক অ্যাসিড থেকে নিয়াসিন

১৮৭৩ সালে নিকোটিন নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে নিয়াসিন সম্পর্কে প্রথম ধারণা দিয়েছিলেন অস্ট্রিয়ান রসায়নবিদ হুগো ওয়েডেল। ১৯২৫ সালে তামাকের মধ্যে থাকা রাসায়নিক পদার্থ নিকোটিন অণু ভেঙে সেটার মধ্যে একধরনের ...

নিকোটিনিক অ্যাসিড থেকে নিয়াসিন

শব্দকাহন

হাইড্রোজেনের কথা

পর্যায়সারণির প্রথম মৌল হাইড্রোজেন। বিগ ব্যাংয়ের কিছু সময় পরে তৈরি হওয়া প্রথম তিনটি মৌলের মধ্যে হাইড্রোজেন অন্যতম। ষোড়শ শতকের দিকেই এই গ্যাসটি সম্পর্কে জানতে পেরেছিলেন রসায়নবিদেরা।

হাইড্রোজেনের কথা

শব্দগুলো বিজ্ঞানের

কথায় বলে, নামে কীই-বা আসে যায়। কিন্তু তারপরও দৈনন্দিন জীবনে নামের গুরুত্বকে অস্বীকার করার উপায় নেই। নতুন কিছুকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করাসহ নানা কারণেই নাম দিতে হয়। বিজ্ঞান আর প্রযুক্তির ক্ষেত্রেও কথাটি ...

শব্দগুলো বিজ্ঞানের
আরও