কাপড় যখন শুকনা থাকে, তখন এসব খালি জায়গা বাতাসে পূর্ণ থাকে। বাতাস হালকা ও স্বচ্ছ মাধ্যম। কাপড়ে আলো পড়লে কিছু আলো শোষিত হয়। কাপড়ে উপাদান এবং রঞ্জক পদার্থের উপর শোষণের পরিমাণ নির্ভর করে। শোষণের পর বাকি আলোটুকু প্রায় সোজা প্রতিফলিত হয়ে আমাদের চোখে এসে পড়ে।

কাপড় যখন ভিজে যায় তখন প্রতিটি সুতার ফাঁকে, প্রতিটি মাইক্রোফাইবারের ফাঁকে প্রবেশ করে পানির কণা। আগে যে জায়গাগুলো বাতাসে ভরা ছিলো, সেগুলো এখন পানির কণায় ভরা। পানি বাতাসের চেয়ে ঘন মাধ্যম। এবারে প্রতিসরণের সূত্র মেনে আলোক রশ্মি বিক্ষিপ্তভাবে প্রতিফলিত হয়। কাপড়ের আলো শোষণের পরিমাণও কিছুটা বাড়ে।

সবমিলিয়ে কাপড় থেকে আগের থেকে অনেক কম আলোক রশ্মি এসে আমাদের চোখে পড়ে। তাই, কাপড় স্বাভাবিকের চেয়ে অনুজ্জ্বল অর্থাৎ গাঢ় দেখায়। একই কারণে কাপড়ের রঙও কিছুটা ভিন্ন বলে মনে হয়।

কাপড় যতো শুকাতে থাকে তত এর মধ্যকার পানির জায়গা দখল করে বাতাস। আলোর প্রতিফলন ততই স্বাভাবিক হতে থাকে। স্বাভাবিক হতে থাকে কাপড়ে রঙ। পুরো ব্যাপারটি একধরণের অপটিক্যাল ইলিউশন বা আলোক দৃষ্টিভ্রম ছাড়া আর কিছুই নয়!

লেখক: শিক্ষার্থী, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ, তেজগাঁও কলেজ, ঢাকা।

সূত্র: সায়েন্স ফোকাস

পদার্থবিজ্ঞান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন